প্রথম প্রেমালাপ (পর্ব-২)

Updated: Jun 27, 2021



দু’দিন রনিতদের বাড়িতে কাটানোর পর রনিত, বাবাই আর অভি মামার বাড়ি যাবার জন্য বেরিয়ে পড়লো।


বুঝলে বাবাইদা কাল এতো মাল খাবার পর সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠতে আমার ফেটে গেলো ,চোখ খুলতেই চাইছে না।ভাবছি মামার বাড়ি পৌঁছে আগে ভালো করে ঘুম দেবো নাহলে এই ঘুম ঘুম চোখ নিয়ে মেয়ে দেখবো কি করে।"(রনি)

আমারও তোর মতোই অবস্থা , তাও ভালো কালকে একটু মাল বেচে গিয়েছিলো ওটা নিয়ে এসেছি কাল যদি ওটাও খেতাম তাহলে আর পুজো দেখা হতো না।” (বাবাই)

কি বলছো সোনা তার মানে আজ জলখাবারের ব্যাবস্থা হয়ে গেলো ।পুজোর শুরুটা তার মানে মাল খেয়েই হবে ।যা করবে তাড়াতাড়ি করবে তুমি তো জানো যে পুজো মণ্ডপে মেয়েদের আগমনের সাথে সাথে আমি ভদ্র ছেলে হয়ে যাই।” (রনিত)



সে ভালো মতোই জানি যে আমার ভাই কি জিনিস।”(বাবাই)

চল মামার বাড়ি পৌঁছে গেলাম।”(অভি)

মামার বাড়ি পৌঁছে তিনমূর্তি নিজেদের ব্যাগ রেখে ফ্রেশ হলো, ভেবেছিলো একটু রেস্ট নেবে তবে সেটা আর হলো না ।কম বয়সী ভাগ্নেদের উপর মামা কিছু দায়িত্ব দেবে না সেটা কি হই ।

এই শোন তোরা তিনমূর্তি আসতে এতো দেরি করলি কেন রে ?তোদের কোন দায়িত্ব নেই? (স্বপন বাবু)

[স্বপন বাবু হলো রনিতের ন’মামা ]

আসলে মামা রাত ২টোর সময় ঘুমিয়ে সকাল ৬টায় উঠতে কি যে কষ্ট তুমি কি জানবে। (রণিত)

কেনো সোনা কি এমন মহান কাজ করছিলে যে রাত ২টো পর্যন্ত জেগে থাকতে হলো(স্বপন বাবু )

রনিত কি করে বলবে যে সেই মহান কাজটা হলো মাল খাওয়া ।তাই কিছু না বলে চুপ করে থাকলো।

আর কথা না বারিয়ে যা জলখাবারের ওখানে গিয়ে একটু হাথ চালিয়ে দে”(স্বপন বাবু)

মামার কথা মতো রনিত আর বাবাই খাবারের ওখানে চলে যাই আর অভি চলে যাই নিজের বউের কাছে ।অভি আবার বউ পাগল ।

খাবারের ওখানে গিয়ে বাবাই আর রনিতের চোখ পরে জিন্স টপ পড়ে থাকা এক রমনির দিকে।


তাহলে কি এই সেই মেয়ে যার মধ্যে রনিত সত্যি ভালোবাসা খুজে পাবে?


জানতে গেলে চোখ রাখুন আগামী পর্বে ।



32 views0 comments